Loading...
You are here:  Home  >  কলকাতা  >  Current Article

কত নির্লজ্জ হবে পুলিশ! কত নির্লজ্জ হবেন শাসকরা!

By   /  March 11, 2015  /  No Comments

স্বরূপ গোস্বামী

পুলিশ সম্পর্কে নানা রকম প্রবাদ আছে। সাতের দশকে বলা হত, ‘পুলিশ তুমি যতই মারো, মাইনে তোমার একশো বারো।’ তারও আগে, একটি স্মরণীয় বাক্য বেরিয়ে এসেছিল সত্যেন্দ্রনাথ মজুমদারের সম্পাদকীয় কলম থেকে। পুলিশের বর্বরোচিত আচরণের পর তিনি লিখেছিলেন, ‘উহারা জননীর গর্ভের লজ্জা।’ আজ সেই কথাটা আরও একবার বলতে ইচ্ছে করছে। একই কথা বলতে ইচ্ছে করছে এই রাজ্যের শাসকদের উদ্দেশ্যে। কোনও গণতান্ত্রিক সমালোচনা এঁদের জন্য যথেষ্ট নয়। খুব ভদ্র ভাষায় বলছি, ওঁরা নির্লজ্জ, ওঁরা অসভ্য, ওঁরা বর্বর।

বুধবার সকালের ঘটনা। বেলদার ঠাকুরদা গ্রামে পৌঁছে গেলেন দুর্নীতি দমন শাখার অফিসাররা। সেখানে ভগবতী দেবী নারী কল্যাণ সমিতির দপ্তর। এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার অন্যতম পরিচালক ঊষা মিশ্র। সম্পর্কে তিনি সূর্যকান্ত মিশ্রর স্ত্রী। অফিসে গিয়ে জানলেন, তিনি নেই (ভুল বলা হল, আগেই জানতেন, তিনি নেই। জেনেবুঝেই এসেছেন)। কর্মীরা জানালেন, উনি কলকাতায়, আপনারা ফোনে কথা বলে নিতে পারেন। না, কথা বলার সৌজন্য দেখাননি পুলিশ কর্তারা। তালা ভেঙে ঢোকা হল তাঁর দপ্তরে। এবার ভাঙা হল তাঁর আলমারি। কী আশ্চর্য, সেই সময়ে ভেতরে কাউকে থাকতে দেওয়া হল না।

ঠিক তিন দিন আগে পিছিয়ে চলুন। ব্রিগেডের সমাবেশ। তিনি রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। স্বভাবতই সরকারের কিছু সমালোচনা করেছিলেন সূর্যকান্ত মিশ্র। গত প্রায় চার বছরে নানা ইস্যুতে সরকারের সমালোচনা করলেও একটি দিনের জন্যেও কোনও অসংযত কথা বলেননি। শিষ্টাচার মেনে, সংযত ভাষায়, দায়িত্বশীল বিরোধী দলনেতার ভূমিকাই পালন করে চলেছেন। ব্রিগেডের মঞ্চে তিনি বলেছিলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর আশেপাশে যাঁরা থাকেন, তাঁরা একে একে সবাই ধরা পড়ছেন। গুরুতর সব অভিযোগ। মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন ওঠাই স্বাভাবিক।’ এটুকু সমালোচনাও সহ্য করা যাবে না। সেদিন বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হুঙ্কার, ‘উনি নিজের স্ত্রীকে সামলান।’ মন্ত্রী বলেছেন বলে কথা। অতএব, পুলিশকে তো কিছু না কিছু করতেই হবে। তাঁরা হাজির হয়ে গেলেন বেলদায়, বিরোধী দলনেতার স্ত্রীর দপ্তরে। শোনা যাচ্ছে, তাঁর স্ত্রীর নামে এফ আই আরও করা হয়েছে। আর্থিক তছরূপ থেকে প্রতারণা, বিরোধী দলনেতাকে কলঙ্কিত করতে যা যা অভিযোগ আনা যায়, পুলিশ চেষ্টার ত্রুটি রাখল না।

surja babu3

দুদিন আগে পার্থবাবু ঘোষণা করলেন। আর দু’দিন পরেই দুর্নীতি দমন শাখার অফিসাররা কলকাতা থেকে হাজির হয়ে গেলেন প্রত্যন্ত গ্রামে। সময়টা লক্ষ্য করুন। সারা রাজ্য জানে, সিপিএমের রাজ্য সম্মেলন চলছে। ভাবী রাজ্য সম্পাদক হিসেবে ভেসে উঠছে সূর্যকান্ত মিশ্রর নাম। তাঁর স্ত্রীও কলকাতায়। ঠিক সেই সময়েই হানা দেওয়া হল প্রত্যন্ত গ্রামের অফিসে। এতই তৎপরতা, তালা ভেঙে ঢুকতে হল। এতই তৎপরতা যে, আলমারির চাবি ভেঙে ফেলতে হল! তাও আবার সেই ঘরে কাউকে থাকতে দেওয়া হল না। কী জানি, হয়ত বোমা-বন্দুক কী আবিষ্কার হবে। নথি বাজেয়াপ্ত হল বলে কোন সাজানো নথি আদালতে তুলে ধরা হবে!

পুলিশকে এতখানি অবিশ্বাস না করলেও চলত। কিন্তু প্রতিদিন যেসব কান্ড কারখানা ঘটছে, ভরসা রাখা যাচ্ছে কই! বরং পুলিশের একটা অংশ প্রতিদিন বুঝিয়ে দিচ্ছেন, তাঁদের উপর কোনও বিশ্বাস রাখা উচিত নয়। সমস্ত রকম অপর্কম তাঁরা করতে পারেন। বিধাননগর কমিশনারেট সারদা কান্ডের একের পর এক নথি যেভাবে নষ্ট করেছে, যেভাবে প্রমাণ লোপাট করেছে, এমন নির্লজ্জতার নজির এই দেশে আছে কিনা সন্দেহ। সুদীপ্ত সেনের স্ত্রীকে বিধাননগরের পুলিশ এক বছরে খুঁজে পেল না। যেই ইডি গ্রেপ্তার করল, অমনি তৎপর হয়ে উঠল পুলিশ। এবার তো ইডি ব্যাঙ্কের লকার খুলতে পারে! পুলিশ রাতের বেলা চলে গেল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে। ঘুম থেকে তুলে সই করিয়ে রাতের বেলায় ডাকা হল ব্যাঙ্কের ম্যানেজারকে। এত রাতে খোলা হল ব্যাঙ্কের লকার। পরের দিন ইডি গিয়ে যেন কিছু না পায়। যে পুলিশ এতদিন ঘুমিয়েছিল, ইডি পৌঁছনোর আগেই তাঁরা পৌঁছে গিয়ে লকার থেকে প্রমাণ লোপাট করে ফেলল।

এত দূরের উদাহরণ বরং থাক। সূর্যবাবুর পরিবার থেকে উদাহরণ খোঁজাই ভাল। কয়েক মাস আগের ঘটনা। রাজাবাজার সায়েন্স কলেজে শ্রীমান শঙ্কুদেব পন্ডার নেতৃত্বে একদল ‘সুবোধ বালক’ দাবি তুলল, রোশনারা মিশ্রকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। কারণ, তিনি সূর্যকান্ত মিশ্রর কন্যা। প্রাণীবিদ্যার একজন কৃতী অধ্যাপিকা (শাসক দলের অনেক মাতব্বরের মতো তাঁর ডিগ্রিটা অন্তত জাল নয়)। লাগাতার কয়েকদিন চলল শঙ্কুর নেতৃত্বে অসভ্যতা। একজন অধ্যাপিকা সম্পর্কে এমন এমন ভাষা ব্যবহার করা হল, এঁদের ছাত্রনেতা ভাবতেও ঘেন্না হয়। পুলিশ নির্বিকার। দিন কয়েক পর থানায় এফ আই আর করা হল, রোশনারা মিশ্র নাকি এক ছাত্রীর গলার হার ছিনতাই করতে পারেন। পুলিশ সেই এফ আই আর গ্রহণ করল। কী আশ্চর্য, যেদিনের ঘটনা, সেদিন সারাদিন রোশনারা ছিলেন সল্টলেকে, সায়েন্স কংগ্রেসে। স্বয়ং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সারাদিন রোশনারার সঙ্গে ছিলেন। উপাচার্যের বয়ানে পরিষ্কার হয়ে গেল, ওইদিন তিনি কলেজেই আসেননি। না, এই মিথ্যে অভিযোগের জন্য শঙ্কুদেব পন্ডা বা তৃণমূল নেতৃত্ব ক্ষমাও চাননি। হ্যাঁ, এঁরা এতটা নিচেই নামতে পারে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা। সেই রাজ্যে প্রথমসারির এক কলেজে এক কৃতী অধ্যাপিকার সঙ্গে তাঁর দল ও পুলিশ এই পর্যায়ের নির্লজ্জ আচরণ করেছে।

এবার টার্গেট সূর্যবাবুর স্ত্রী। তিনি একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন চালান। তাঁর সংস্থার কাজকর্ম নিয়ে তদন্ত হতেই পারে। একটি গ্রামের সংগঠন, হয়ত কাগজ পত্রে অল্পবিস্তর অসঙ্গতিও থাকতে পারে (যদিও প্রতিবছরের অডিট রিপোর্ট নিয়ম করে জমা করা হয়েছে) । যদি মনে হয়, দুর্নীতি বা নয়ছয় হয়েছে, তদন্ত হোক। রাজনৈতিক কারণে তিলকে তাল করতে চাইলে, তাও করুন। তাই বলে একেবারে তালা ভেঙে ঢুকে পড়তে হবে! আলমারি ভাঙতে হবে! তাঁকে ডেকে পাঠিয়ে, তাঁর উপস্থিতিতেই তো তল্লাশি করা যেত। এটাই তো শিষ্টাচার। বিরোধী দলনেতার পদমর্যাদা ক্যাবিনেট মন্ত্রীর সমান। তাঁর স্ত্রীর দপ্তরে, তাঁকে না জানিয়ে তালা ভেঙে ঢুকে পড়বেন ? একটা ন্যূনতম শিষ্টাচার থাকবে না ? সূর্যবাবুর স্ত্রী কি দেশদ্রোহী না উগ্রপন্থী যে এভাবে তল্লাশি চালাতে হবে!

যদি বলা হয়, ইচ্ছে করেই রাজ্য সম্মেলনের সময়টাকেই বাছা হয়েছে, খুব কি ভুল হবে ? দু’দিন আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বললেন, আর দুদিন পরেই এইরকম নজিরবিহীন তল্লাশি, প্রশ্ন উঠবে না ? নামে দুর্নীতি দমন শাখা, আগে নিজেদের দুর্নীতি ও অসভ্যতাকে দমন করুন।

অসভ্যতা শুধু পুলিশের নয়, অসভ্যতা আরও বড় জায়গায়। এত বড় একটা সিদ্ধান্ত পুলিশ নিয়েছে, বিশ্বাস করি না। তাহলে কারা এই নির্দেশ দিলেন ? পার্থবাবুরও এতটা ক্ষমতা আছে বলে বিশ্বাস হয় না। অর্থাৎ, নির্দেশটা এসেছে সর্বোচ্চ স্তর থেকেই। ভাবতে লজ্জা হয়, সূর্যবাবুকে কলঙ্কিত করতে এঁরা এতটা নিচে নামতে পারেন! এঁরা মন্ত্রী ! এঁরা সরকার চালান !

কোনও সমালোচনা, কোনও ঘৃণাই এঁদের জন্য যথেষ্ট নয়। সেই সত্যেন মজুমদারের ভাষাতেই বলতে হয়, ‘উহারা জননীর গর্ভের লজ্জা।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 5 =

You might also like...

radio3

না বোঝা সেই মহালয়া

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk