Loading...
You are here:  Home  >  কলকাতা  >  Current Article

জ্যোতিবাবু থাকলে শুধু প্রতিবাদ হত না, প্রতিরোধও হত

By   /  July 9, 2015  /  No Comments

সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়

 

১) কদিন ধরেই সব কাগজে, চ্যানেলে বলা হচ্ছে, এ কী হল, সোমনাথ চ্যাটার্জি আর সীতারাম ইয়েচুরি এক মঞ্চে! একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। তাই বলে এক মঞ্চে থাকা যাবে না!

২) আমি যখন লোকসভার অধ্যক্ষ হই, জ্যোতিবাবু বলেছিলেন, আপনাকে দেখিয়ে দিতে হবে, গণতন্ত্র ঠিকমতো পরিচালনা করতে পারে একজন কমিউনিস্ট। কতটা পেরেছি জানি না, তবে প্রাণপনে চেষ্টা করে গেছি।

৩) সারা জীবন আমার সেরা প্রাপ্তি জ্যোতি বাবুর স্নেহ। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দিয়েছেন। আমার বারবার মনে হয়েছে, জ্যোতিবাবুর মর্যাদা রাখতে হবে। জ্যোতিবাবুর সম্মান রাখতে হবে।

৪) যখন রাজনীতি শুরু করি, উনি বলেছিলেন, অনেকে নানাভাবে মানুষের সেবা করে। কিন্তু মনে রাখবেন, জনসেবা করার সেরা পথ হল রাজনীতি। মানুষের সঙ্গী হিসেবে, বন্ধু হিসেবে সবসময় তাঁদের পাশে থাকতে হবে। মানুষের থেকে কখনও বিচ্ছিন্ন হবেন না।

somnath babu3

৫) বিলেতে গিয়েছিলেন ব্যারিস্টার হবেন বলে। ফিরে এলেন। কিন্তু গায়ে কোট নয়। উনি বেছে নিলেন শ্রমিকদের বস্তি। সুখের জীবন ছেড়ে পড়ে রইলেন নির্যাতিত মানুষদের পাশে।

৬) তখন বিধানসভায় তাঁকে নিয়ে মোট তিনজ বিধায়ক। মাত্র তিনজনের নেতা হয়েও বিধানসভায় কীভাবে নিজের গুরুত্ব আদায় করেছিলেন। বিধানচন্দ্র রায়ের মতো মুখ্যমন্ত্রীও তাঁকে বিশেষ গুরুত্ব দিতেন।

৭) মানুষের ভাষায় কথা বলতেন। মানুষ সহজেই তাঁর কথা বুঝতে পারত। মানুষের সমস্যাকে তাঁর মতো করে কজন বুঝতে পারতেন, সন্দেহ আছে। তখন তো মিডিয়া ছিল না। তবু অদ্ভুত একটা আকর্ষণ তৈরি হয়েছিল তাঁকে ঘিরে। বোলপুরের গ্রামে মিটিং করবেন। সকাল দশটার আগে লাখ লাখ মানু কোথা থেকে কীভাবে যে হাজির হয়ে গেলেন, ভাবতে গেলে অবাক হতে হয়।

৮) স্বৈরতন্ত্র দেখেছেন। জরুরি অবস্থা দেখেছেন। কীভাবে লড়াই করেছেন, আমরা অনেকেই জানি। কখনও মাথা নত করেননি। মানুষকে সঙ্গে নিয়ে লড়াই চালিয়ে গেছেন।

৯) তখন যুক্তফ্রন্ট। পুলিশেরা বিদ্রোহ করল। বিধানসভা ঘেরাও করল। একা জ্যোতিবাবু কী অসীম সাহসে সেদিন রুখে দাঁড়ালেন!

somnath4

১০) আজ এই নৈরাজ্যের পরিবেশে জ্যোতিবাবু থাকলে কী হত, মাঝে মাঝে নিজেকে প্রশ্ন করি। আমার মনে হয়, জ্যোতিবাবু থাকলে শুধু প্রতিবাদ হত না, প্রতিরোধও হত। এই সময় প্রতিরোধটাও জরুরি। নিজে সেই প্রতিরোধে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতেন।

১১) ইংরেজদের আমরা তাড়িয়েছি। সে ছিল স্বাধীনতার যুদ্ধ। কিন্তু আজ চারিদিকে যা দেখছি, দ্বিতীয় স্বাধীনতার লড়াই লড়তে হবে। সবাইকেই সেই লড়াইয়ে অংশ নিতে হবে।

১২) শিক্ষা নেই, চাকরি নেই, কোথাও আইনের শাসন নেই। যে যা পারছে, করে যাচ্ছে। সমস্তশ্রেণির মানুষ আক্রান্ত। কোন পথে চলেছি আমরা ? এ কোন নৈরাজ্যে বাস করছি ? আমি অবসরপ্রাপ্ত মানুষ। এই বয়সে এসে কিছু করার ক্ষমতা নেই। তবু আশা করব, মানুষ আবার জেগে উঠবেন। সেটাই হবে জ্যোতিবাবুর প্রতি আসল শ্রদ্ধা।

 

(বুধবার জ্যোতি বসুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে যে ভাষণ দিয়েছেন, তার নির্বাচিত কিছু অংশ)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − 2 =

You might also like...

chalo lets go

অঞ্জনের একটা ছবিই চোখ খুলে দিল

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk