Loading...
You are here:  Home  >  রাজনীতি  >  রাজ্য  >  Current Article

নিরীহ ‘‌রিমেক’‌ শব্দটাও রাখা গেল না!‌

By   /  March 3, 2017  /  No Comments

রক্তিম মিত্র

বিধানসভা ও লোকসভায় আপত্তিকর শব্দের একটা তালিকা থাকে। কোনও অশ্লীল বা অপমানজনক শব্দ বা লাইন স্পিকার মশাই ইচ্ছে করলে রেকর্ড থেকে বাদ দিতে পারেন। কিন্তু ইদানীং আমাদের রাজ্যে অদ্ভুত এক প্রবণতা তৈরি হয়েছে। সরকারের সমালোচনা করে কিছু বললেই বলা হচ্ছে প্রমাণ দিতে হবে। নইলে প্রিভিলেজ মোশান এনে হেনস্থা করা হচ্ছে। সমালোচনা করলেই কখনও বলা হচ্ছে প্রত্যাহার করতে হবে, ক্ষমা চাইতে হবে। একান্ত নীরিহ কিছু শব্দকেও রেকর্ড থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে।

এমন একটা আবহ তৈরি করা হচ্ছে, বিরোধীদেরও সরকারের গুণগান গেয়ে যেতে হবে। স্তাবকতা করে যেতে হবে। পাছে বিরোধীরা সমালোচনা করলে মুখ্যমন্ত্রী রেগে যান, অতএব বিরোধিদেরও সমালোচনা করা চলবে না। স্বাস্থ্য বিলের দিন সেটা আরও একবার দেখা গেল। কংগ্রেসের অভিজ্ঞ বিধায়ক অসিত মিত্র। তিনি বলেছিলেন, এই বিল আগের বিলের রিমেক। অসিতবাবু চারবারের বিধায়ক, প্রাক্তন শিক্ষক। মার্জিত রুচির মানুষ। সংসদীয় শিষ্টাচার মেনেই চলেন। কখনও অসংসদীয় শব্দ ব্যবহার করতে দেখিনি। বিধানসভার নিয়ম–‌কানুন তিনি অনেকের থেকে ভাল জানেন। অন্তত যাঁদের এগুলো বেশি করে জানা দরকার, তাঁদের থেকে ভাল জানেন।

asit mittra

হ্যাঁ, এটা ঘটনা ২০১০ সালেও বেসরকারি নার্সিংহোমকে নিয়ন্ত্রণের জন্য এরকম একটা বিল এসেছিল। বেশ কিছু ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ ও শাস্তির কথা উল্লেখ ছিল। তারপর সরকার বদলে যায়। সেই পুরনো সেই আইনকে আর কার্যকর করা হয়নি। সরকার চাইলে নতুন করে বিল আনতেই পারেন। আগের বিলের সঙ্গে এই বিলের অনেক জায়গায় মিল রয়ে গিয়েছে। সাত বছরে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি হয়েছে। স্বাভাবিক কারণেই ক্ষতিপূরণের অঙ্কটা বেড়েছে। কিছু বিষয় নতুন যুক্ত হয়েছে। বিরোধিদের কেউ কেউ দাবি করেছিলেন, আগের বিলের সঙ্গে এত যখন মিল, তখন সেটা অ্যামেন্ডমেন্ট করলেই তো হত। তবু সরকার যদি চায়, আলাদা বিল আনতেই পারে। কিন্তু বিরোধিদের পরামর্শকে নস্যাত করে দিতে হবে?‌ এই বিল আগের বিলের রিমেক— এই সামান্য কথাটুকুও বলা যাবে না?‌ যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী ধমকে বলে দিয়েছেন, আগের বিলে কিচ্ছু ছিল না। অতএব সুরটা তিনি বেঁধে দিয়েছেন। জো হুজুর স্পিকারকেও তাই মেনে নিতে হবে। বিরোধীরা কেউ ভিন্ন সুরে গাইলে সেই সুর কেটে দিতে হবে। একেবারে নীরিহ ‘‌রিমেক’‌ শব্দটাকেও ভয়ঙ্কর আপত্তিজনক বলে বাদ দিতে হবে।
স্পিকার মশাই সত্যিই বড় অসহায়। তাঁকে একটু করুণা করা যেতেই পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

thirteen − 1 =

You might also like...

radio3

না বোঝা সেই মহালয়া

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk