Loading...
You are here:  Home  >  ওপেন ফোরাম  >  Current Article

পুজোয় মিত্তি’র বাবুর পাঁচালি

By   /  October 30, 2015  /  No Comments

শোভন চন্দ

থাক, আর না, অনেক হয়েছে, আজ আমি ক্লান্ত। ওই ছোঁড়াটার গানটা খুব মনে পড়ছে “আমাকে আমার মতো থাকতে দাও আমি নিজেকে নিজের মত গুছিয়ে নিয়েছি“আপদ সে হলেও একটা পথ ছিল তোরা যা গোছানোর গোছালি আর ফেঁসে গেলাম আমি। তাই অনেক হয়েছে এবার একটু একা থাকতে চাই।আজও মনে পড়ে হারানো সে সময়ের কথা কতই না সুখে কাটছিল সেই দিন গুলি। শিলান্যাস থেকে অনুষ্ঠান,মোচ্ছব থেকে নাচা গানা জলসা আহা কী আনন্দ ।আর কোথায় এই জীবন অসুস্থ হয়েও রেহাই নেই।ভাবি মাথা ব্যাথার অজুহাতে কাঁদো কাঁদো মুখে দিন দশেক একটু আরামে কাটাবো। তা আর হচ্ছে কই? এখন তো দিন বড় কষ্টে কাটে, শরৎকাল,কাশফুলের দোলা ,দুগগা পূজা- পরাণ যে পেখম তুলে নাচতে চায়। কী ছিল সেই সময় ,একের পর এক বিলিতি পানীয়র গন্ধ ছাড়া চোখে ঘুম আসতো না, তার ওপর পুজোরসময়টা আহা- খুঁটি পুজো এক প্যান্ডেল থেকে অন্য প্যান্ডেল জ্যান্ত কচি লক্ষী-সরস্বতীদের সাথে নানান পোজে ছবি ,পাড়ার পুজোর আয়োজন প্যান্ডেল থেকে ধুনুচি নাচ বাওয়ালি উফ……। আর আজ কিনা এই চার দেওয়ালে বন্দী। মহালয়ায় তোরা গঙ্গার ঘাটে হাওয়া খাচ্ছিস আর আমাকে হাসপাতালেই তর্পণ সারতে হল।

woodbarn2
ওরে আমি কি করব,আমি যে মায়ের ক্ষ্যাপা ছেলে মনটা বড় সরল। ওরা বলল চল, কিছু মানুষকে দেউলিয়া বানাই, আমিও না করতে পারলাম না, অত সাত পাঁচ না ভেবে রাজি হয়ে গেলাম।নয় কিছু মানুষঅস্তিত্ব হারিয়েছে এতে কি এমন মহাভারত অশুদ্ধ হয়েছে শুনি ।নয় কিছু রক্ত জল করা পয়সায় বিলিতিজল খেয়েছি টুকটাক বিয়ে –সাদিতে উড়িয়েছি,মাত্র ক’দিনের জীবনে একটু ফূর্তি করব না তা কি করে হয়।“ওরা” নয় ভুলে গেল তা বলে তোরাও! দাদার নামে হোর্ডিং দিলি, সম্পাদক বানালি । আর পুজো আসতে বেমালুম সব ভুলে গেলি।

woodbarn3
আরে আমিও তো এক কালে অভিনয় করেছি তালে তাল মিলিয়ে বহু পাঁচালি সুর করে গেয়েছি। আর আজকে পুজোর একটা গান হল থিম সং করে প্যান্ডেলে বাজালি আমি তার বিন্দু মাত্র টেরও পেলাম না। কত ভাবনা ছিল এবার পুজোয়। ভেবেছিলাম রাজ্যের মানুষদের সাথে যেভাবে খেলি সেভাবে পাড়ার বৌদিদের নিয়ে একটা মিউজিক্যাল চেয়ার খেলবো। কোথায় গেল পাড়ার বৌদি আমি তো এখন জেলের কয়েদি। উন্নয়নকে থিম করে একটা প্যান্ডেল বানাবো প্রাণ ভরে মাকে ডাকবো । কত স্বপ্ন ছিল । সব আজ ভোগে। শুধু মুখেই আমার প্রতি ভালোবাসা শহর জুড়ে” দাদার নিঃশর্ত মুক্তি” চাই পোষ্টার দিলি। কই আমাকে ভালোবেসে পুজোটা তো বয়কট করতে পারলিনা । মায়ের প্রিয় “গণেশকে” তোরা মহিষাসুর বানিয়ে ছাড়লি।তবে হ্যাঁ আমি যদি মহিষাসুর হই ওরাও কিছু কম না একথা মনে রাখিস। বেশ হয়েছে খুব তো উড়ছিলি ৬০ ফুট -৮০ ফুট উঁচুতে দেখলি তো এত বড় তত বড় বিশ্বের সব থেকে বড় দুর্গা। গেল তো সব বন্ধ হয়ে। ওরে পাগলা ধম্মের কল বাতাসে নড়ে।
deshpriya park6

তবে কথা দিচ্ছি আমি ফিরে আসবই। দুনিয়ায় কোনও কারাগার তৈরি হয়নি যে আমাকে আটকে রাখবে ।ফিরে আসব তোদের সামনে সে দিন বুঝবি “মিত্তির” বাবু কি জিনিস। তবে আর তোদের ভরসা নয় এবার “মা “ই তার ভক্তকে পথ দেখাবে-‘মা মাগো জয় মা “সারদা” এই থুড়ি “দুর্গা”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × five =

You might also like...

taxi

হাওড়া স্টেশন নিয়ে প্রশাসনের হেলদোল নেই

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk