Loading...
You are here:  Home  >  খেলা  >  Current Article

ফুটবল মাঠে ঘৃণা নাই বা ছড়ালেন

By   /  February 15, 2017  /  No Comments

সবুজ সরকার

বর্তমান সংবাদপত্রে রন্তিদেব সেনগুপ্তর লেখা আর দেখা যায় না। সাপ্তাহিক বর্তমান পত্রিকার দায়িত্ব থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। খবরের কাগজ ছেড়ে তিনি এখন ফেসবুকে আর এস এসের মতামত প্রচার করছেন। শোনা যাচ্ছে, বিজেপি নাকি তাঁকে রাজ্যসভায় পাঠাতে পারে। রন্তিদেবাবুর রাজনৈতিক মতামত নিয়ে আমাদের কিছু বলার নেই। কিন্তু গত ১২ ফেব্রুয়ারি মোহনবাগান–‌ইস্টবেঙ্গল ডার্বির দিন তিনি ফেসবুকে যে পোস্ট করেছেন, তা হাস্যকর ছাড়া আর কিছুই নয়। তিনি লিখেছেন, ‌সংকটের সময় আমরা, হিন্দুরা, যদি একজোট না হয়ে সেই মোহনবাগান– ‌ইস্টবেঙ্গল –‌ঘটি–‌বাঙাল করি, তাহলে ইতিহাস আমাদের ক্ষমা করবে তো?‌
রন্তিদেববাবু জীবনে কখনও খেলাধূলা করেছেন কিনা জানা নেই। কিন্তু খেলার মূল উদ্দেশ্য তিনি জানেন না। মানুষের সমাজে অনেক গোষ্ঠী থাকে। রাজ্য থাকে, দেশ থাকে। তাদের মধ্যে রেশারেশিও থাকে। এই রেশারেশি যাতে যুদ্ধ, দাঙ্গায় না গড়ায়, সে জন্যই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্ভব। রেশারেশি যা আছে, তা খেলার ময়দানেই মিটে যাক। যুদ্ধের ময়দানে যেন না গড়ায়। একবার ভেবে দেখুন, ভারতের কোনও সৈনিককে পাকিস্তান কখনও ভালবাসবে না। কিন্তু শচীন বা বিরাট সে দেশে গেলে উষ্ণ অভ্যর্থনা পান। আমাদের দেশেও, এমনকি হিন্দুদের মধ্যেও ইমরান, আক্রাম, আফ্রিদিরা অসম্ভব জনপ্রিয়।

rantideb3

মোহনবাগান–‌ইস্টবেঙ্গল বিবাদে সমাজের ক্ষতি হয়, এ কথা রন্তিবাবুর মাথায় ঢুকল কীভাবে?‌ বরং এই খেলা না থাকলেই বাঙাল–‌ঘটি দাঙ্গা হতে পারত। আপনি জানেন কত শত বাঙাল মোহনবাগান সমর্থক?‌ আপনি জানেন, সুধীর কর্মকার, গৌতম সরকারদের ভালবেসে কত ঘটির ছেলে ইস্টবেঙ্গলের সাপোর্টার হয়ে গিয়েছিল?‌ শিলিগুড়ি থেকে ফেরার পথে যে মোহনবাগান সমর্থক ছেলেটি ট্রেনে কাটা পড়ে মারা গেল, আপনি জানেন তার বান্ধবী ইস্টবেঙ্গলের সমর্থক?‌ আপনি জানেন সেই ছেলেটি ইস্টবেঙ্গল সমর্থক বন্ধুদের সঙ্গেই খেলা দেখতে গিয়েছিল?‌ তারাই তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়?‌ খেলার মধ্যে বন্ধুত্ব হয়, প্রেম হয়, একসঙ্গে ট্রেন যাত্রা হয়। আবার শ্মশানযাত্রাও হয়।
রন্তিদেববাবুর যুক্তি মানলে সন্তোষ ট্রফি আর রনজি ট্রফি বন্ধ করে দেওয়া উচিত। কারণ, তাতে রাজ্যে রাজ্যে হানাহানি হবে। কিন্তু রন্তিদেববাবু জেনে রাখুন, খেলা হল একটি ধর্ম। যারা হিন্দু, হিন্দুত্ব, ইসলাম প্রভৃতি ধর্মে বিশ্বাস করে, তাদের অনেকেই দাঙ্গা করে, যুদ্ধ করে। যারা ফুটবল ধর্মে বিশ্বাস করে, তারা ঝগড়া করে, আবার ভালোওবাসে। কখনও যুদ্ধ করে না।
রন্তিদেববাবুর কাছে অনুরোধ, আপনি নিজে যা খুশি করুন। দয়া করে ফুটবল মাঠে ধর্ম বা রাজনীতি করতে আসবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − five =

You might also like...

radio3

না বোঝা সেই মহালয়া

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk