Loading...
You are here:  Home  >  জেলার বার্তা  >  Current Article

বেড়ালের গলায় ঘন্টা বাঁধার কাউকেই পাওয়া গেল না

By   /  July 8, 2015  /  No Comments

সুজন চৌধুরি

এ রাজ্যে বিজেপি-র হাওয়া হঠাৎ থমকে গেল কেন ? রাজ্য নেতাদের ব্যর্থতা একটা বড় কারণ। কিন্তু আমার মনে হয়, তার থেকেও বড় কারণ কেন্দ্রীয় নেতাদের আচরণ। ভেবেছিলাম, অমিত শাহর সামনে সেই আসল সত্যিটা তুলে ধরা হবে। কিন্তু বেড়ালের গলায় ঘণ্টা বাঁধার সাহসটা কেউই দেখাতে পারলেন না।

লোকসভা ভোটের পর থেকেই পালে হাওয়া লেগেছিল বিজেপি-র। তৃণমূলের কাজকর্মে বীতশ্রদ্ধ, এমন অনেকেই যোগ দিয়েছিলেন বিজেপি শিবিরে। তাঁরা যে বিজেপি-র ভাবাদর্শে দারুণভাবে প্রভাবিত, এমনটা নয়। তাঁরা যত না বিজেপি পন্থী, তার থেকে অনেক বেশি তৃণমূল বিরোধী। তাঁদের অনেকের মনে হয়েছিল, তৃণমূলের বিরুদ্দে যদি কেউ লড়াই করতে পারে, তবে তা বিজেপি পারবে। এই বিশ্বাস থেকে বাম শিবিরের অনেকেই যোগ দিয়েছিলেন বিজেপিতে। নেতা যত না এসেছিলেন, কর্মী এসেছিলেন সেই তুলনায় অনেক বেশি। তাঁদের যে ব্যক্তিগত উচ্চাকাঙ্খা ছিল, এমনও নয়। কোনও  সন্দেহ নেই, তাঁদের অনেকেরই মোহভঙ্গ হয়েছে।

amit shah

প্রথমত, রাজ্য নেতৃত্বের ভূমিকায় তাঁরা হতাশ। তৃণমূল বিরোধী এই হাওয়াকে তাঁরা কাজেই লাগাতে পারেননি। তবে তার থেকেও বড় কারণ মোদি-মমতা সখ্য। গত কয়েক মাসে সিবিআই তদন্তের গতি অনেকটাই থিথিয়ে এসেছে। এখন যা হচ্ছে, তা নাম কে ওয়াস্তে। সবাই সবকিছু বুঝতে পারছে। রাজ্যসভায় বিল পাসের জন্য মমতার সমর্থন দরকার। এটা মোদি খুব ভাল করে বোঝেন। বোঝেন মমতাও। মুখে যতই কেন্দ্র রাজ্য সম্পর্কের কথা বলা হোক, এই সমর্থন পাওয়ার সবথেকে বড় শর্ত হল, সারদা তদন্তে ঢিলে দিতে হবে। কেন্দ্র বিজেপি যে মমতা ব্যানার্জির বিরুদ্ধে বা তৃণমূলের বিরুদ্ধে সংঘাতে যেতে রাজি নয়, তা নিচুতলার বিজেপি কর্মীরা বুঝে গেছেন।

তৃণমূলের সঙ্গে লড়াইয়ের জন্যই যাঁরা বিজেপি-তে এসেছিলেন, তাঁদের মোহভঙ্গ হওয়ারই কথা। রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব এই সহজ সত্যিটা বেশ ভালভাবেই উপলব্ধি করছেন। টিভি ক্যামেরার সামনে তাঁরা যাই বলুন, এই বদলে যাওয়া সমীকরণ তাঁরাও মন থেকে মানতে পারছেন না। কথা ছিল, অমিত শাহ-র কাছে সেই ক্ষোভের কথা তুলে ধরা হবে। মোদি-মমতা সখ্যের কারণেই কর্মীদের উজ্জীবিত করা যাচ্ছে না, এমনটা বলা হবে। কিন্তু অমিত শাহর সামনে কেউই সেভাবে মুখ খুলতে পারলেন না। তাঁরা সাংগঠনিক দুর্বলতা, আন্দোলন বিমুখতা, শাসক দলের সন্ত্রাস—এসব গোল গোল কথা বলে গেলেন। আসল কারণটা অমিত শাহ-র জানাই হল না।

বেড়ালের গলায় ঘণ্টা বাঁধার সেই লোকটাই পাওয়া গেল না।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve − five =

You might also like...

taxi

হাওড়া স্টেশন নিয়ে প্রশাসনের হেলদোল নেই

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk