Loading...
You are here:  Home  >  ওপেন ফোরাম  >  Current Article

মোহনবাগানের অনুষ্ঠানে বাবুলকে ডাকা হল না কেন ?

By   /  August 22, 2015  /  No Comments

সবুজ সরখেল
দেখেশুনে সন্দেহ হচ্ছে, মোহনবাগান ক্লাবটা খেলাধূলার জন্য আ গানবাজনার জন্য। ১২৫ বছরের অনুষ্ঠানে শেষে সোনু নিগম নাইট!
ধীরেন দে যখন কর্মকর্তা ছিলেন, ফুটবলে পেলেকে এনেছিলেন। হকিতে বিশ্ব একাদশের সঙ্গে ভারতীয় দলের ম্যাচ হয়েছিল। ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের এনেছিলেন। এসেছিলেন বিশ্বের প্রথমসারির অ্যাথলিটরা। আর এখন ? কিছু না হোক, ভারতীয় ফুটবল দলের সঙ্গে মোহনবাগানের একটা ম্যাচ হতে পারত। মহেন্দ্র সিং ধোনি তো ভারতীয় দলের সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় যাননি। ধোনি একাদশ বনাম সৌরভ একাদশ খেলা হতে পারত। তার বদলে যে অনুষ্ঠান হচ্ছে, সেটা যে কোনও পাড়ার জলসাতেও হতে পারে।

mohun bagan6
২৯ জুলাইয়ের মতো ঐতিহাসিক দিনের অনুষ্ঠান বাতিল করা হল। অজুহাত দেখানো হল, ২২ তারিখের অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি অংশ নেবেন। কিন্তু বিধি বাম। রাষ্ট্রপতি আসছেন না। রাজ্যপালও আসবেন কিনা ঠিক নেই। রাষ্ট্রপতির পারিবারিক জীবনে একটা দুর্ঘটনা ঘটে গেছে। কিন্তু আগে থেকেই কর্তাদের ভাবা উচিত ছিল, রাষ্ট্রপতির মতো মানুষের অনুষ্ঠানসূচি যে কোনও সময় পরিবর্তিত হতে পারে। তবুও তাঁরা ২৯ তারিখের অনুষ্ঠান বাতিল করলেন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ছবি তোলার লোভে।
আচ্ছা, প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার এত ঝোঁক কেন ক্লাবকর্তাদের ? কীসের স্বার্থে ? আর ঝোঁক যখন, তখন রাজনৈতি রঙ বিচার করা কেন ? রাষ্ট্রপতি, রাজ্যপালের কোনও রঙ হয় না। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীকে যখন ডাকলেন, তখন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে ডাকলেন না কেন ? তিনি মুখ্যমন্ত্রীর বিরোধী দলের বলে ? অথচ, এই বাবুল মোহনবাগান অন্তঃপ্রাণ। বছর তিন চার আগে তিনি মোহনবাগানের জার্সির ডিজাইন করেছিলেন। তখন তিনি বিজেপি-তে যোগ দেননি। তাই তিনি ছিলেন ক্লাবকর্তাদের চোখে মণি। কিন্তু এখন তিনি অনুষ্ঠানে ব্রাত্য, পাছে মুখ্যমন্ত্রী রেগে যান! আচ্ছা, বাবুলদা, আপনিই বা নিজের অধিকারে আসছেন না কেন ? নিমন্ত্রণ নাই করুক, সমর্থক হিসেবে তো আপনি আসতে পারতেন। এলে দেখতাম, কী করে আপনাকে মঞ্চে উঠতে না দেয়!

mohun bagan5
রাষ্ট্রপতি নেই, রাজ্যপাল অনিশ্চিত, বাবুল নেই। থাকছেন শুধু মুখ্যমন্ত্রী। তিনি তো থাকবেনই। শহরের যে কোনও বড় অনুষ্ঠানে তিনি মধ্যমণি। চেতলা অগ্রণীর বিজয়া সম্মেলনীতেও তিনি যান। তার উপর তাঁর ভাই মোহনবাগানের কর্মসমিতির সদস্য। তাঁর সরকারের দুই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও সুব্রত মুখার্জি এবং হাওড়ার মেয়র ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট। তিনি আসবেন না তো কে আসবে ?
মুখ্যমন্ত্রী আসায় মোহনবাগানের সমর্থকরা অবশ্যই আনন্দিত ও গর্বিত। তিনি ক্রীড়ামোদি, খেলাধূলার উন্নতির চেষ্টা করেন। হয়ত মোহনবাগানকে ভালওবাসেন। কিন্তু ক্লাবকর্তাদের কাছে কিছু প্রশ্ন আছে। অন্য কোনও রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি না থাকায় এটা কার্যত তৃণমূলের অনুষ্ঠান হয়ে দাঁড়িয়েছে। বাবুলকে পাত্তা না দেওয়ায় হয়ত মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নম্বরও বেড়েছে। এবার সাহস করে কোনও একজন কর্তা বলে ফেলুন, মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী, আই লিগ জেতার জন্য আমাদের সংবর্ধনাটা কবে দেওয়া হবে ?

babul
দেখি মুখ্যমন্ত্রী কী জবাব দেন। মুখ্যমন্ত্রী হয়ত ভেবেছিলেন, মোহনবাগানকে সংবর্ধনা দিলে ইস্টবেঙ্গলের সমর্থকরা ক্ষেপে যাবে। তা এখন মোহনবাগানের অনুষ্ঠানে এলে ইস্টবেঙ্গলের সমর্থকরা ক্ষেপবে না ? যদি মোহনবাগানের অনুষঅঠানে আসতে পারেন, তাহলে সংবর্ধনাও দিতে পারবেন। মোহনবাগান ক্লাবটা তো তৃণমূলে তৃণমূলে ভরে গেল। মুখ্যমন্ত্রী তো কর্তাদের কাছের লোক। ভয় কী ? একবার সাহস করে সংবর্ধনার প্রস্তাবটা দিয়ে দেখুন না। আর যদি সাহসে না কুলোয়, তাহলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কেও অনুষ্ঠানে ডাকুন। তাঁকে দূরে সরিয়ে রেখে, মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নম্বর বাড়িয়ে কোনও লাভ হচ্ছে কি ?

(এটা বেঙ্গল টাইমস কর্তৃপক্ষের মতামত নয়। মতামতের দায় সম্পূর্ণ লেখকের)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 2 =

You might also like...

radio3

না বোঝা সেই মহালয়া

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk