Loading...
You are here:  Home  >  খেলা  >  Current Article

সত্যকে তো কাজ করতেই দেবে নাঃ সুব্রত

By   /  April 24, 2015  /  No Comments

মৌতান ঘোষাল

 

মাঠে কাধে কাধ মিলিয়ে বহু ম্যাচ জিতিয়েছেন মোহনবাগানকে। ট্রফি জিততে এই ক্লাবের জন্য একসঙ্গে লড়েছেন বহুবার। এবারেও লড়াইটা ক্লাবের জন্যই, তবে এবার একসঙ্গে নয়, লড়াই-এ একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী সুব্রত ভট্টাচার্য্, সত্যজিত চ্যাটার্জি। যদিও দুজনেই মনে করেন, এবারের মোহনবাগান নির্বাচনে এই লড়াইটা কোনওভাবেই প্রভাবিত করবে না তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ককে। তবু লড়াই তো আছে, পছন্দের মতপার্থক্যও আছে, তাই নিজের নিজের মতো করে রয়েছে পরিকল্পনাও। মোহনবাগান নির্বাচনে ফুটবল সচিব পদে মনোনীত যুযুধান দুই পক্ষের দুই ফুটবলারের সঙ্গে কথা বললেন আমাদের প্রতিনিধি মৌতান ঘোষাল। একান্ত সাক্ষাৎকারে উঠে এল সুব্রত ও সত্যজিতের নিজেদের ভাবনা।

subrata bhattacharya3

লড়াইটা যখন শুরু করেছিলেন অনেকেই পাশে ছিলেন মৌখিকভাবে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে দূরে সরেগেছেন অনেকেই। তবে ময়দান ছেড়ে কখনও পালাতে শেখেননি সুব্রত ভট্টাচার্য্। কার্যত তার জন্যই এবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই মোহন নির্বাচনে। আর নির্বাচনের প্রস্তুতিতে স্ববভাবসিদ্ধ ঢঙেই স্ট্রেট ব্যাটে খেলছেন সুব্রত।

প্রশ্নঃ ফুটবলার, কোচ হিসাবে দায়িত্ব সামলেছেন, প্রশাসনিক দায়িত্ব সামলাতে কতটা প্রস্তুত?

সুব্রতঃ পুরোপুরি প্রস্তুত।আজ প্রায় ৪০ বছর মোহনবাগানের সঙ্গে আছি। যারা ক্লাব চালিয়েছেন, মানে বর্তমান যারা চালাচ্ছে তারা নয়, যারা আগে চালিয়েছেন তাঁদের দেখেছি। ধীরেন দে, উমাপতি কুমার, শৈলেন মান্নাদের মতো কর্তাদের দেখেছি, তাই জানি কাজটা কীভাবে করতে হয়।

প্রশ্নঃ আপনার প্রতিপক্ষ আপনার এক সময়ের সতীর্থ সত্যজিত চ্যাটার্জি। লড়াইটা কীভাবে দেখছেন?

সুব্রতঃ ভালো তো। অবশেষে যে ফুটবলার কাউকে প্রার্থী করেছে এটাই তো ভালো। তবে সত্য অপারগ। ওকে কিছু কাজ তো করতে দেবেনা। ওই চারজন ছাড়া আর কাউকে কোনও কাজ ওরা করতে দেয় না কোনওদিন। সত্য ভালো, কিছু করতে চাইলেও ওরা করতে দেবেনা। সত্য’র পক্ষে মুশকিল আছে। ও তো কোনওদিনই প্রতিবাদী চরিত্র নয়! অন্যায়ের বিরুদ্ধে কোনওদিনই রুখে দাড়ায়নি। আজ যদি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে গিয়ে কাজ করতে যায় ওকে দু’মাসের মধ্যে সরিয়ে দেবে। বা এমন করবে, যাতে ও বাধ্য হয়ে চলে যায়।

subrata bhattacharya4

প্রশ্নঃ নির্বাচনে জিতে এলে ফুটবল সচিব হিসাবে আপনার কী কী পরিকল্পনা থাকবে?

সুব্রতঃ সবার আগে ইউথ ডেভলপমেন্ট নিয়ে ভাবতে হবে। ক্লাবের অনূর্ধ্ব ১৩, অনূর্ধ্ব ১৫,অনূর্ধ্ব ১৭, অনূর্ধ্ব ১৯ এই চার বিভাগের খেলোয়াড়দের তৈরি’র দিকে নজর দিতে হবে। ফুটবলারদের ট্রেনিং-এর জন্য বিদেশে পাঠানো, সম্ভব হলে কোচেদের এ এফ সি লাইসেন্স করতে পাঠানো, এগুলোর চেষ্টা করতে হবে। বাঙালি ফুটবলার তুলে আনতে আমরা জেলায় জেলায় ফ্র্যাঞ্চাইজি তৈরি করতে পারি। সেখান থেকে খেলোয়াড় নিয়ে আসতে হবে আমাদের। বাঙালি খেলোয়াড় তৈরি করতে হবে, বাঙালি সেন্টিমেন্টটাকে মাঠে ফিরিয়ে আনতে হবে। সঙ্গে সিনিয়র দল যাতে ভাল খেলে সেদিকেও নজর রাখতে হবে।

প্রশ্নঃ প্যানেল যা ঘোষিত হয়েছে দু’পক্ষের এবং যা প্রস্তুতি, তাতে নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে আপনি কতটা আশাবাদী?

 

সুব্রতঃ আমি জয়ের ব্যাপারে পূর্ণ আশাবাদী। যা ছলচাতুরি ওরা (বর্তমান শাসকগোষ্ঠী) করবে, সেগুলো আটকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। সে ব্যবস্থা যদি করা যায়, যদি ঠিকঠাক ভাবে ভোট হয় ওরা ৫ শতাংশও ভোট পাবে না। দেখা যাক কী হয়। তবে আমি আশাবাদী।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 2 =

You might also like...

taxi

হাওড়া স্টেশন নিয়ে প্রশাসনের হেলদোল নেই

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk