Loading...
You are here:  Home  >  জেলার বার্তা  >  দক্ষিন বঙ্গ  >  Current Article

কুকুরের ডাক্তারও মানুষের ডাক্তারের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে!

By   /  June 11, 2017  /  No Comments

সত্রাজিৎ চ্যাটার্জি

রাজ্য মেডিকেল কাউন্সিলে ডাঃ সূর্যকান্ত মিশ্রের রেজিস্ট্রেশন নেই। অতএব তিনি বিগত বাম সরকারের আমলে ভুয়ো ডিগ্রি নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন এবং বর্তমান সরকারের আগের টার্মে বিরোধী দলনেতা থাকার সময়ও বিধানসভাতে বা অন্যান্য জায়গায় মাঝে মধ্যে প্রয়োজনে রোগীদের চিকিৎসা করতেন, সেটাও একদম অবৈধ। সুতরাং হালে এই যে সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালে এত এত অবৈধ, ভুয়ো ডাক্তারে ছেয়ে গেছে এর প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ দায় বিগত বাম সরকারের ওপরেই বর্তায়। ইত্যাদি ইত্যাদি।
এই মারাত্মক অভিযোগের বক্তা কে ? নির্মল মাজি। যিনি উলুবেড়িয়া উত্তর কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের টিকিটে জেতা বিধায়ক আর বর্তমানে রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের সভাপতি। তার আরও একটি পরিচয় আছে। তিনি সরকারি ক্ষমতা বলে সরকারি হাসপাতালে- (এস.এস.কে.এম) নিজের পোষা কুকুরের ডায়ালিসিস করান। আর আজকে তিনি সূর্যকান্ত মিশ্রের যোগ্যতা, স্বচ্ছতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন !!

surja babu2
আসলে এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই, কারণ তিনি যে দলের যে পদ অলঙ্কৃত করেছেন, তাতে এইসব অর্বাচীনের মত মন্তব্য করে দলনেত্রীর সুনজরে পড়াই তার একমাত্র উদ্দেশ্য। বিশেষতঃ এমন একটা সময়ে যখন তার দল ও দলের সর্বোচ্চ নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী পাহাড় সমস্যা নিয়ে বেশ জর্জরিত। এতদিন তিনি পাহাড়কে নাকি হাসতে দেখতেন আর সেই সুযোগে অনেক আগুন নিয়ে খেলেছিলেন। আর আজকে সেই আগুন শুধু পাহাড়েই নেই, বরং সেই আগুনের গনগনে আঁচ তার দলকেও বেশ ভালরকম পোড়াচ্ছে। এই অবস্থায় বিরোধীদের নামে একটু গালমন্দ করলে দোষ কি ? যে রাজ্যে সরকারের “পদলেহী” কিছু বাজারি মিডিয়া আছে, তারা তো এসব পেলে লুফে নেবে বৈকি! তখন পাহাড়ে আর কোনও সমস্যাই থাকবে না! সমস্যা চলে আসবে বিরোধী মানে সেই সি.পি.এমকে নিয়েই। আর যেখানে খবরের কাগজ়ে বা মিডিয়াতে প্রতিদিনই এখন বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর সাধের “সুপার স্পেশালিটি” হাসপাতালে জাল ডাক্তারদের হদিশ পাওয়া যাচ্ছে, তখন সূর্যবাবুর নামে গালমন্দ করলে দোষারোপের তীরটাও সি.পি.এমের দিকেও ঘুরিয়ে দেওয়া যাবে বৈকি ! আচ্ছা বলুন তো, বর্তমানে বাংলাতে এত এত অবৈধ ডাক্তার আসছে কোথা থেকে? সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল নাকি গলি থেকে রাজপথ সর্বত্র ছেয়ে আছে। এমনই প্রচার চলছে বিগত ৪-৫ বছর ধরে। অথচ সেই হাসপাতালের বাস্তবচিত্রটা যে কী তা ১১ ই জুনের আনন্দবাজার পত্রিকার ১৬ নম্বর পাতায় বেরিয়েছিল । সকলের সুবিধার্থে আর একবার সেই খবরের লিংকটি দিলাম এখানে।
http://www.anandabazar.com/calcutta/no-arrangements-of-waiting-rooms-in-government-hospitals-patient-parties-faced-troubles-1.619383
আর তথাকথিত সে “সুপারস্পেশালিটি” হাসপাতালে ডাক্তার কোথায়? যারা আছেন তাদের মধ্যে থেকেও তো কত শত অবৈধ ডিগ্রীধারী বেরোচ্ছে। অথচ মুখ্যমন্ত্রী এত গর্ব করে “সুপার স্পেশালিটি” হাসপাতালের কথা ঢাক পিটিয়ে বলে বেড়ান, বাড়ির জানলা খুললে গলির মুখে লাইট পোস্টের গায়ে “মাননীয়ার অনুপ্রেরণায় এগিয়ে বাংলা”,”উন্নয়নে বাংলা শ্রেষ্ঠ”,” নির্মল বাংলা”, ইত্যাদি বড় বড় হরফে লেখা হোর্ডিং, ব্যানার চোখে পড়ে আর নিজের ভাইপো যখন অ্যাক্সিডেণ্টে মরণাপন্ন হয়, তখন তাকে “গর্বের” সরকারি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের ভরসায় না রেখে, সেই প্রাইভেট হাসপাতালেই চিকিৎসা করাতে নিয়ে যেতে হয়, এমনকী সিঙ্গাপুরে অবধি নিয়ে যেতে হয় !
যাই হোক,এই কুকুরের ডায়ালিসিস করা ডাক্তার নির্মল মাজী বোধ হয় জানেন না, যাঁর যোগ্যতা ও স্বচ্ছতা নিয়ে তিনি প্রশ্ন তুলছেন, সেই পার্টি নিবেদিত প্রাণ মানুষটি শুধুমাত্র পার্টিকে ভালোবেসেই নিজের ডাক্তারি সার্টিফিকেটটি সযত্নে আলমারিতে তুলে রেখেছিলেন। যেহেতু সূর্যবাবু কোনওদিনই ডাক্তার হিসেবে প্র্যাকটিস করেননি, তাই স্বভাবতঃই তাঁর রেজিস্ট্রেশন নম্বর থাকার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। যেদিন থেকে ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিল, ডাক্তারদের রেজিস্ট্রেশন নম্বর দেওয়া শুরু করেছিল তার অনেক আগে থেকেই সূর্যবাবু কমিউনিস্ট পার্টির সর্বক্ষণের কর্মী রূপে বিবেচিত হয়ে গেছেন। পার্টির প্রতি অনুরাগের কারণেই তিনি কোনও দিনই ডাক্তারিকে নিজের পেশা হিসেবে গ্রহণ করেননি। নারায়ণগড়ে তাঁর একটা চেম্বার হয়তো আছে, কিন্তু সেখানেও তিনি সামাজিকভাবে দুঃস্থ ও অবহেলিত রোগীদের নিখরচায় চিকিৎসা করেন। আর তাঁর যোগ্যতার মাপকাঠি? তথ্য বলছে শ্রীরামচন্দ্র ভঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ডহসপিটাল, কটক (এসসিবি মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল) থেকে ১৯৭১ সালে এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করেন সূর্যকান্ত মিশ্র। ১৯৭৪ সালে ওই একই কলেজ থেকে চেস্ট স্পেশালাইজেশনও করেন তিনি। মেডিক্যাল কলেজে পড়ার সময় থেকেই রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ডাঃ মিশ্র জুনিয়ার ডাক্তারদের আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে জেলে যান। পরবর্তী সময়ে চাকরি না করে সর্বক্ষণের রাজনীতিতে যুক্ত হয়ে পড়েন তিনি। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতীয় চিকিৎসকদলের স্বেচ্ছা কর্মী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।
এই হল প্রকৃত ইতিহাস। আর মাজিবাবুর দলনেত্রীর পি.এইচ.ডির সার্টিফিকেটটির বৈধতা? সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি মানে ইস্ট জর্জিয়া ইউনিভার্সিটির নাম মনে হয় গুগলও আজ অবধি খুঁজে পায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eight + five =

You might also like...

amitabh2

কী ভেবেছিলেন, গুরুং খাদা পরিয়ে বরণ করবেন!‌

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk