Loading...
You are here:  Home  >  ওপেন ফোরাম  >  Current Article

হঠাৎ আজহারকে রাজ্যসভায় পাঠানোর ভাবনা কেন?‌

By   /  July 27, 2017  /  No Comments

বাংলা কি এতটাই দেউলিয়া হয়ে গেল যে হায়দরাবাদ থেকে আজহারকে এনে এখানে প্রার্থী করতে হবে?‌ যে ভুলটা সিপিএম করেছে, সেই ভুল কি কংগ্রেসও করবে?‌ এখনই ছেঁটে ফেলা হোক আজহারের ভাবনা। লিখেছেন সুমিত চক্রবর্তী।। 

বাংলায় কি নেতা কম পড়িয়াছে?‌ প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বকে দেখে তেমনটাই মনে হচ্ছে। রাজ্যসভা আসনে কে প্রার্থী হবেন, তা নিয়ে এখনও সিদ্ধান্তে আসতে পারছে না কংগ্রেস।
প্রথমে শোনা গিয়েছিল, আসনটি সীতারাম ইয়েচুরিকে ছেড়ে দেওয়া হবে। এই ব্যাপারে হাইকমান্ড ও রাজ্য নেতৃত্ব মোটামুটি একমত ছিলেন। সিপিএমের রাজ্য নেতৃত্বও তেমনটাই চেয়েছিলেন। কিন্তু বেঁকে বসল পলিটব্যুরো ও কেন্দ্রীয় কমিটি। ফলে, ইয়েচুরি প্রার্থী হচ্ছেন না।
এই রাজ্য থেকে দুই দাবিদার ছিলেন প্রদীপ ভট্টাচার্য ও দীপা দাশমুন্সি। অধীর চৌধুরিরা নাকি মীরা কুমারের নাম প্রস্তাব করেছিলেন। যদিও তা এখনও চূড়ান্ত নয়। এরই মধ্যে বাজারে ভেসে উঠল মহম্মদ আজহারউদ্দিনের নাম। ফারাক্কার বিধায়ক মইনুল হক উঠেপড়ে লেগেছেন আজহারকে বাংলা থেকে রাজ্যসভায় পাঠানোর জন্য। একঝাঁক বিধায়ককে দিয়ে সই করিয়েছেন। দাবিপত্র পাঠিয়েছেন দিল্লিতে।

azhar
এর আগেও এই রাজ্য থেকে আজহারের নাম শোনা গিয়েছিল। সেটা লোকসভা নির্বাচনের আগে। মুর্শিদাবাদ কেন্দ্র থেকে লড়াইয়ের ইচ্ছে জানিয়েছিলেন প্রাক্তন এই ভারতীয় অধিনায়ক। অধীরের নাকি প্রাথমিক সম্মতিও ছিল। কিন্তু তখন জয়ী সাংসদ মান্নান হোসেনকে বাদ দিতে রাজি হয়নি হাইকমান্ড। ফলে, ফের প্রার্থী হন মান্নান (‌যদিও ভোটে হারার পরেই নাম লেখান তৃণমূলে)‌।
আবার আজহারের নাম সামনে আনা হল কেন?‌ আজহার কী এমন অপরিহার্য প্রার্থী যে এই রাজ্য থেকে তাঁকে রাজ্যসভায় পাঠাতে হবে?‌ ২০০৯ এ মোরাদাবাদ থেকে লোকসভায় জিতে এসেছিলেন। কিন্তু পারফরমেন্স অতি নিম্নমানের। হ্যাঁ, একসময় ক্রিকেটে দেশের অধিনায়ক ছিলেন। কিন্তু তাঁর গায়ে বেটিংয়ের কলঙ্কও আছে। বোর্ড তাঁকে নির্বাসন দিয়েছিল। দেশের অধিকাংশ মানুষই বিশ্বাস করেন, তিনি বেটিং কান্ডে যুক্ত ছিলেন। স্বয়ং শচীন তেন্ডুলকার অস্ট্রেলিয়া সফরের সময় বলেছিলেন, যদি আজহারকে পাঠানো হয়, পরের বিমানে তিনি ভারতে ফিরে আসবেন।
এমন একজনকে কারা রাজ্যসভায় পাঠাতে চাইছেন?‌ কংগ্রেসের বাকি নেতারাই বা সায় দিচ্ছেন কেন?‌ আজহারকে পাঠানো হলে কংগ্রেসের কী লাভ হবে জানা নেই। তবে বিজেপি–‌র যে এই রাজ্যে লাভ হবে, এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। যাকে তাকে প্রার্থী করে দিলেই সংখ্যালঘুদের আস্থা পাওয়া যাবে?‌ সংখ্যালঘুদের কি এতটাই নির্বোধ মনে করেন কং নেতারা?‌
কংগ্রেস কাকে প্রার্থী করবে, সেটা একান্তই তাদের দলের ব্যাপার। তবে, ভিরাজ্য থেকে এমন প্রার্থীকে উড়িয়ে আনবেন না। এতে কংগ্রেসের ভাবমূর্তি যেমন ক্ষুন্ন হবে, তেমনই বাংলার ভাবমূর্তিও ক্ষুন্ন হবে। এমন কাউকে প্রার্থী করা হোক, যিনি যথার্থই ধর্মনিরপেক্ষ। যাঁর ভাবমূর্তি সাধারণ মানুষের কাছে উজ্জ্বল। যিনি বাম–‌ডান উভয় শিবিরের কাছেই গ্রহণযোগ্য। হাতে সময় খুব কম। এর মধ্যেই সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

amazon-greatindiansale-strip

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 + seventeen =

You might also like...

national flag

একটি তারিখের আড়ালে

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk