Loading...
You are here:  Home  >  ওপেন ফোরাম  >  Current Article

সবংয়ে বামেরা জিতলে অবাক হবেন না

By   /  December 19, 2017  /  No Comments

অভিরূপ কুমার

শিরোনাম দেখেই অনেকে হয়ত ক্ষেপে উঠবেন। সিপিএমের দালাল বলে চিৎকার শুরু করে দেবেন। কিন্তু সত্যি বলছি, সবংয়ে সিপিএম জিতলে অবাক হবেন না। অন্তত সংগঠনের নিরিখে, প্রচারের নিরিখে অনেকটাই এগিয়ে সিপিএম। বাকি রইল হাওয়া। যা অনেক হিসেব, অনেক সমীকরণকে গোলমাল পাকিয়ে দেয়। আর রিগিং। ছাপ্পা এখন মোটামুটি অধিকারের পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। সেটাও অনেক সময় ফারাক গড়ে দেয়। এবং এগুলো বামেদের পক্ষে যাওয়ার কথা নয়। আর সেখানেই সংশয়।
দেড় বছর আগের বিধানসভা নির্বাচনে মানস ভুঁইয়া জিতেছিলেন ৪৯ হাজার ভোটে। সিপিমের ভোট + ‌কংগ্রেসের ভোট + ‌মানস ভঁুইয়ার নিজস্ব ক্যারিশ্মার কিছু ভোট। এবার কংগ্রেস আলাদা প্রার্থী দিয়েছে। ফলে, কং ভোট আসছে না। মানস ভুঁইয়ার নিজস্ব ভোট নিশ্চয় সিপিএমের বাক্সে আসবে না। ফলে, সিপিএমকে নিজস্ব ভোটের ওপরই ভরসা করতে হবে।
সেটাও যে অক্ষত আছে, এমনটা বলা যাবে না। নানা জায়গায় বিজেপি মুখী একটা চোরাস্রোত তো আছেই। বামেরা নয়, তৃণমূলকে হারাতে পারলে বিজেপিই পারবে, এই জাতীয় একটা ধারণা অনেকের মনেই ডালপালা মেলছে। ফলে, সেই ভোট নানা জায়গায় বিজেপি–‌র পালে হাওয়া তুলছে। তবে এক্ষেত্রে তেমনটা হওয়ার আশঙ্কা কম। কারণ, লড়াইয়ের ময়দানে সিপিএম অনেক বেশি সক্রিয়, এটা সবংয়ের মানুষ অন্তত দৈনন্দিন অভিজ্ঞতা থেকেই বুঝছেন। অনেকদিন পর একটি নির্বাচনকে সিপিএম সাংগঠনিকভাবে দারুণ গুরুত্ব দিয়েছে। একেকটি অঞ্চলের জন্য জেলা কমিটির একেক জন সদস্য। পদযাত্রা থেকে সাইকেল র‌্যালি, মিছিল থেকে ছোট ছোট সভা— সব ব্যাপারেই দারুণ সক্রিয় সিপিএম কর্মী ও নেতৃত্ব। হীনমন্যতা নয়, যেন ঘুরে দাঁড়ানোর তাগিদ, জবাব দেওয়ার তাগিদ।

manas bhunia

সাংগঠনিকভাবে বিজেপি একেবারেই দুর্বল। শেষ বিধানসভায় ভোট পেয়েছিল মাত্র আড়াই হাজার। সাংগঠনিকভাবে সেটা বিরাট কিছু বেড়েছে, এমনও নয়। তবে ওই যে, হাওয়া। বিক্ষুব্ধ তৃণমূলের বড় একটা ভোট বিজেপি–‌র পালে যেতেই পারে। অন্যান্য জায়গায় হতাশ বাম ও বিক্ষুব্ধ তৃণমূল— এই দুই শিবিরের ভোট যোগ হয় বিজেপির বাক্সে। এক্ষেত্রে প্রথম সম্ভাবনা কম। তবে তৃণমূলের যে অংশ চায় না মানস ভুঁইয়ার স্ত্রী জিতুন, তাঁদের ভোট বিজেপি–‌তেই পড়তে পারে। তার দৌলতে হাজার পনেরো পেয়ে গেলে অবাক হওয়ার কিছু নেই। তবে বিজেপির পক্ষে দ্বিতীয় হওয়া কঠিন।

বামেদের দাবি, ঠিকঠাক ভোট হলে জয় আসবে। নিছক আবেগে বলা কথা নয়। যুক্তি আর অঙ্কটাও কিন্তু বেশ জোরালো। অধিকাংশ অঞ্চলেই বামেদের লিড থাকবে, এ নিয়েও সন্দেহ নেই। তবে কয়েকটি অঞ্চলই মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। দেখা গেল, বারোটি অঞ্চলে সিপিএম এগিয়ে। কোথাও পাঁচশো, কোথাও দুশো, কোথাও তিনশো। বারোটি অঞ্চল মিলে লিড হয়ত পাঁচ হাজার। অন্যদিকে, তৃণমূল হয়ত তিনটি অঞ্চলে এগিয়ে। কিন্তু ওই তিনটি অঞ্চলের লিডটাই হয়ত কুড়ি হাজারের। কারণ, সব জায়গায় ছাপ্পা রুখে দেওয়ার মতো প্রতিরোধ শক্তি এই মুহূর্তে বামেদের নেই।

লড়াইটা যতটা না মানস ভুঁইয়ার বিরুদ্ধে, তার থেকেও বেশি অন্য এক ঘোষের বিরুদ্ধে। যিনি একসময় আদাজল খেয়ে মানসকে হারানোর জন্য নেমেছিলেন। ঘোষ পদবীর সেই মহিলাই আজ মানসের সবথেকে বড় ভরসা। সত্য সেলুকাস, কী বিচিত্র এই রাজনীতি।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 4 =

You might also like...

facebook fake id2

সোশাল নয়, এ যেন অ্যান্টি সোশাল সাইট

Read More →
error: Content is protected !!
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk