Loading...
You are here:  Home  >  ওপেন ফোরাম  >  Current Article

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে খাদ্যাভ্যাস

By   /  August 19, 2020  /  No Comments

করোনা আবহে শুধু সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক, স্যানিটাইজারই যথেষ্ট নয়। রোগ প্রতিরোধের শক্তি বাড়াতে পারে, এমন খাদ্যাভ্যাসও জরুরি। কোন খাদ্য উপাদান কোন ধরনের খাবারে পাওয়া যায়, তা কী কাজে লাগে, সে ব্যাপারে আলোকপাত করলেন বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা:‌ শতরূপা চট্টোপাধ্যায়।

কোভিড–‌১৯ সারা বিশ্বেই এক উদ্বেগ ও আতঙ্ক। আমরা জানি, ফিজিক্যাল ডিস্ট্যান্সিং, মাস্ক ও স্যানিটাইজার আবশ্যিক। তবে এর সঙ্গে আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়াতে হবে। মনে রাখতে হবে, এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিষেধক আমাদের কাছে নেই। দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায় এমন কিছু খাদ্য অবশ্যই রাখতে হবে যা ভাইরাল ইনফেকশনের বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। বিভিন্ন গবেষণায় জানা গেছে, কিছু খাদ্য উপাদান এই মুহূর্তে খুবই জরুরি। সেরকমই পাঁচটি খাদ্য উপাদান এবং তাদের উৎস ও গুরুত্বের কথা উল্লেখ করলাম। —

১)‌ ভিটামিন — A
‌উৎস— তেলযুক্ত মাছ, ডিমের কুসুম, চিজ, টফু, বাদাম, লেগিউমস ইত্যাদি। এছাড়া বিটা ক্যারোটিন যুক্ত শাক সব্জি যেমন হলুদ ও কমলা রঙের সব্জিতে (‌গাজর, কুমড়ো ইত্যাদি)‌ ভিটামিন A ‌থাকে।
গুরুত্ব— ভিটামিন A শরীরে First Line Defence ‌হিসেবে কাজ করে। অর্থাৎ, এই খাদ্য উপাদানটি একটি বেরিয়ার হিসেবে রোগজীবাণুর বিরুদ্ধে কাজ করে। কোনও প্যাথোজেন শরীরে প্রবেশ করলে ভিটামিন A অ্যান্টিবডি তৈরি করতে ও প্যাথোজেনকে প্রশমিত (‌Neutralize) করতে সাহায্য করে।

food3

২) ‌ভিটামিন— C‌
উৎস— কমলালেবু, পাতিলেবু, মুসাম্বি, বেরি, ব্রকোলি, টম্যাটো, ক্যাপসিকাম, পেয়ারা, কাঁচালঙ্কা, আমলকি ইত্যাদি।
গুরুত্ব— ভিটামিন C‌ ভাইরাস ইনফেকশন প্রতিরোধে সাহায্য করে। আমাদের শরীরের যখন কোনও ইনফেকশন হয়, তখন প্রচুর ফ্রি র‌্যাডিক্যাল তৈরি হয়। তারা কোষপর্দা ভেদ করে ইনফেকশন বৃদ্ধি করে। ভিটামিন— সি এক্ষেত্রে কোষকে রক্ষা করতে সাহায্য করে।

৩) ভিটামিন— D
উৎস— ডিম, মাছ, দুধ, মার্জারিন ইত্যাদি। আমরা জানি যে, সূর্যালোকের উপস্থিতিতে ত্বকে ভিটামিন D‌ উৎপন্ন হয়। তবে এখন Pandemic এর আবহে প্রয়োজনের অতিরিক্ত বাড়ির বাইরে বেরোনো উচিত নয়। তাই খাদ্যের মাধ্যমেই এই ভিটামিন গ্রহণ করতে হবে।
‌গুরুত্ব— গবেষণায় দেখা গেছে, ভিটামিন D ‌এর অভাব থাকলে সেইসব ব্যক্তি খুব সহজেই Acute respiratory infection ‌এ আক্রান্ত হন। সেক্ষেত্রে ভিটামিন ডি Suppliment ‌রোগীকে দ্রুত সুস্থ হতে সাহায্য করে। এর অভাবে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়ে।

food4

আমরা জানি, যে সমস্ত খাদ্য উপাদান খুব অল্প পরিমাণে আমাদের প্রয়োজন হয়, অথচ যাদের অভাবে শরীরের নানা সমস্যা হয়, তাদের বলে ট্রেস এলিমেন্ট। এরকমই দুটি ট্রেস এলিমেন্ট বর্তমান পরিস্থিতিতে অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

৪)‌ জিঙ্ক —

এটি আমাদের মিউকাস পর্দার সঠিক গঠন ও কাজে সাহায্য করে (‌Maintains Integrity of Mucous Membrane)‌। এছাড়াও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে। ফলে, এর অভাবে ভাইরাস ইনফেকশনে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়।
উৎস— সামুদ্রিক মাছ, অয়েস্টার, চিকেন, মটন, বাদাম ইত্যাদি।

৫)‌ সেলেনিয়াম—

এই অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্লামেটারি উপাদান হিসেবে কাজ করে। যখন অক্সিডেটিভ ট্রেস–‌এ কোষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন তার হাত থেকে কোষকে রক্ষা করে।
উৎস— মাংস, মাসরুম, দানাশস্য, বাদাম ইত্যাদি। এইসমস্ত খাদ্য উপাদান গ্রহণের মাধ্যমে নিজের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ান ও সুস্থ থাকুন।

তথ্যসূত্র—
ডায়াববেটিস অ্যান্ড মেটাবলিক সিনড্রোম (‌এলসিভিয়ার)‌ — 16th April, 2020
ক্লেয়ার কলিন্‌স, ইউনিভার্সিটি অফ নিউক্যাসেল — 17th March, 2020

‌(‌লেখিকা একজন কনসালট্যান্ট হোমিওপ্যাথ)‌

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × five =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk