Loading...
You are here:  Home  >  রাজনীতি  >  রাজ্য  >  Current Article

ইদ্রিশ আলিদের সঙ্গে দিলীপ ঘোষদের কোনও ফারাক নেই

By   /  March 24, 2017  /  No Comments

ধীমান সরকার

প্রায় এক দশক আগের কথা। দুপুরে হঠাৎ কার্ফিউ কলকাতার একটি বিশেষ এলাকায়। কারণ:‌ তসলিমা নাসরিনের লেখা নাকি খুব আপত্তিজনক। যেদিন যিনি কলকাতায় প্রায় দাঙ্গার পরিস্থিতি তৈরি করেছিলেন, আজ তিনি তৃণমূলের একজন সাংসদ। সেই রাতেই টিভি চ্যানেলে কী হুঙ্কার। তসলিমাকে বাংলায় থাকতে দেওয়া যাবে না। প্রশ্ন এসেছিল:‌ আপনি কি আদৌ বইটি পড়েছেন?‌ জানা গেল, ইদ্রিশ আলি সেই বইটি পড়েননি। শুধু ইদ্রিশ আলি নয়, যাঁরা বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন, তাঁদের অন্তত নব্বই শতাংশ লোক বইটি পড়েননি। এমনকী অর্ধেকের বেশি লোক বাংলা পড়তেই জানেন না।

শ্রীজাত–‌র ঘটনাও সেই পুরনো ঘটনাকেই মনে করিয়ে দিল। সোশাল সাইটে যাঁরা শ্রীজাতের মুণ্ডপাত করেছেন, তাঁদের অনেকেই কবিতাটি পড়েও দেখেননি। কোথায় আপত্তিকর, জিজ্ঞাসা করুন। কোনও স্পষ্ট উত্তর পাবেন না। অথচ, এফ আই আর হয়ে গেল। পুলিশও তেমনি। জামিন অযোগ্য ধারায় মামলাও রুজু হয়ে গেল। এই রাজ্যে এত লোক তাহলে কবিতা বোঝেন!‌ ভাবতেও ভাল লাগছে।

srijato4

আসলে, এই ইদ্রিশ আলিদের সঙ্গে দিলীপ ঘোষদের খুব একটা তফাত নেই। এঁরা কেউ পড়াশোনা করে না। যুক্তির ধার ধারে না। গালমন্দ করাতেই যত আনন্দ। তখন তো তবু সোশাল মিডিয়া ছিল না। এখন এই এক নতুন উৎপাত। সবাই সবকিছু বুঝে গেছে। যে সারা জীবনে পাঠ্যবইয়ের বাইরে একটাও কবিতা পড়েনি, সেও কবিতা নিয়ে দিব্যি জ্ঞান দিচ্ছে। আরে বাবা, শ্রীজাতের কোনও লেখা পড়েছেন?‌ না জেনেশুনে কত মন্তব্যই না ভেসে এল। মা–‌বোন কেউ বাদ গেল না। না, তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও এফআইআর হয় না, তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু হয় না।

একদল ইসলাম ইসলাম করে চিৎকার করছে, তো অন্যরা হিন্দু হিন্দু করেই দিন কাটিয়ে দিল। এর বাইরে এরা কিচ্ছু বুঝল না। আসলে, নিজেদের ধর্মটাও বুঝল না। যাঁরা ইসলাম ইসলাম করে গলা ফাটাচ্ছেন, তাঁরা ইসলামের আসল অর্থই বুঝলেন না। কোরাণ থেকে কোনও ভাল শিক্ষা নিলেন না। কেন তাঁরা শুধু ভোটব্যাঙ্ক হিসেবে থেকে যাচ্ছেন, কেন শিক্ষায় পিছিয়ে পড়ছেন, বুঝেও বুঝছেন না। আর অন্যদল না পড়েছে রামায়ণ, না পড়েছে মহাভারত। সারাদিন পাকিস্তানকে গালাগাল দিতে পারলে আর কিছু চায় না। যোগী আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার কী উল্লাস। যেন এখনই তাঁর ঘরের বেকার ছেলেটা এসএসসি চাকরি পেয়ে যাবে, যেন এখনই তাঁর পাড়ার রাস্তাটা ঢালাই হয়ে যাবে। ‌দুই শিবিরের সঙ্গে কথা বলে এটুকুই বুঝেছি, এঁরা কেউ নিজের ধর্মটুকুও বোঝে না, নিজের ধর্মের সার কথাটুকু বোঝে না। বোঝার আগ্রহও নেই। পড়ার ধৈর্যও নেই। শ্রীজাতের কবিতা নিয়ে যাঁদের এত চিৎকার করতে দেখলাম, তাঁদের অধিকাংশের সঙ্গে কথা বলে মনে হল, তাঁরা কবিতাটি পড়েও দেখেননি। দু–‌একজন পড়লেও কিচ্ছু মানে বোঝেননি। কোন পরিপ্রেক্ষিতে এই কবিতা, সেসব নিয়ে কোনও পড়াশোনাই নেই।

আমি কোনও ধর্মই মানি না। যে যখন ধর্মের নামে গোঁড়ামি দেখায়, তাকে অর্বাচীন বলেই মনে করি। আমার কাছে মন্দির–‌মসজিদ বিষয় নিয়ে তর্কটাই অপ্রাসঙ্গিক মনে হয়। ভাবতে অবাক লাগে, ২০১৭ সালে এই দেশে উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয় না। আলোচনা হয় শুধু ধর্ম নিয়ে। একদিকে ডিজিটাল ইন্ডিয়ার কথা বলে যাব, আরেকদিকে শুধু ধর্মীয় জিগিরকে উস্কে যাব, গেরুয়া পরা লোককে মুখ্যমন্ত্রী বানিয়ে দেব। এ যে কতবড় ধাপ্পাবাজি, তা যাঁরা বুঝছেন না, তাঁদের করুণা ছাড়া আর কীই বা করা যায়!‌

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 − nine =

You might also like...

solan3

চোখ ধরেছে মেঘের ছাতা

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk