Loading...
You are here:  Home  >  কলকাতা  >  Current Article

দারা শিকোর মতোই পরিণতি হল বুদ্ধদেবের

By   /  September 2, 2016  /  No Comments

সবুজ মিত্র

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কট্টর সমালোচকরা তাঁকে মহম্মদ বিন তুঘলকের সঙ্গে তুলনা করে থাকেন। যদি ইতিহাস থেকে উদাহরণ দিতে হয় আর মমতা যদি তুঘলক হন, তাহলে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যকে দারা শিকোর সঙ্গে তুলনা করা যায়।

না দারার সঙ্গে তুলনা করে বুদ্ধবাবুর প্রশংসা করছি না। সাজাহানের জ্যেষ্ঠ পুত্র দারার অনেক গুন থাকলেও গোটা
তিনেক মারাত্মক দোষ ছিল। প্রথমত তিনি ছিলেন অহংকারী, উদ্ধত। যাকে তাঁকে প্রকাশ্যে অপমান করতেন। সাজাহানের একান্ত অনুগত রাজপুত রাজা জয়সিংহকে তিনি প্রকাশ্যে অপমান করেছিলেন। পরবর্তীকালে এই জয়সিংহ আওরঙ্গজেবের সেনাপতি হয়েছিলেন।

singur2

দ্বিতীয়ত, পড়াশোনায় পণ্ডিত হতে গিয়ে দারা রাজনিতিতে মূর্খে পরিণত হয়েছিলেন। আওরংজেব যখন নিজের অনুগতদের নিয়ে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন, দারা তখন পণ্ডিত এবং সাধুসন্তদের সঙ্গে আলোচনা করছিলেন। ভাবছিলেন এঁদের সাহায্যেই তিনি সাম্রাজ্য চালাবেন।

তৃতীয়ত, কে বন্ধু আর কে শত্রু সেটা দারা বুঝতেন না। অহঙ্কাকারের ফলে অনেক বন্ধুকে যেমন শত্রু করে তুলেছিলেন, তেমনই শত্রুকে বন্ধু বলে ভেবেছিলেন। যুদ্ধে পরাজিত হবার পর যার কাছে আশ্রয় নিয়েছিলেন, তিনিই তাঁকে আওরঙ্গজেবের হাতে তুলে দিয়েছিলেন।

ভেবে দেখুন এই তিনটি ভুলের সবকটিই বুদ্ধবাবুর মধ্যে ছিল। দারা এই সব ভুলের খেসারত দিয়েছিলেন নিজের মুণ্ডু বিসর্জন দিয়ে। আর বুদ্ধবাবু খেসারত দিলেন বামফ্রন্টকে বিসর্জন দিয়ে।
শিল্পায়ন হলে রাজ্যের প্রভূত উন্নয়ন হত এতে সন্দেহ নেই, শিল্পায়নে বুদ্ধবাবুর সদিচ্ছা নিয়েও সন্দেহ নেই। কিন্তু রাজনীতি করতে গেলে শুধু সদিচ্ছা থাকলে হয় না, কৌশলীও হতে হয়। বাস্তববোধ থাকতে হয়। দারা শিকোর মতোই বুদ্ধবাবুরও এই বাস্তববোধ ছিল না। টাটাদের প্রকল্পের জন্য তিনি এমন একটা জায়গা বাছলেন যেটা বিরোধীদের শক্ত ঘাঁটি, যেটা কৃষিতে সমৃদ্ধ এলাকা। অনুন্নত জায়গা হলে সেখানকার মানুষের মধ্যে যতটা আগ্রহ থাকত, সিঙ্গুরে তা ছিল না। বরং ছিল বিরোধীদের সাংগঠনিক জোর।

এর সঙ্গে যোগ হল দারা-সুলভ অহংকার। মাথায় চাপল ২৩৫-এর ভূত। বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা করলে বা আন্দোলনকে অঙ্কুরে বিনাশ করলে এত কিছু হত না। কিন্তু অহংকারের জন্যই তিনি প্রথমদিকে বিরোধীদের পাত্তা দেননি। সুপরামর্শ দাতাদেরও পাত্তা দেননি।

এই পর্যায়ে বামফ্রন্টের শরিক নেতারা, বুদ্ধিজীবীরা অনেক বোঝাবার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু দারা শিকোর মতোই বুদ্ধবাবু বন্ধু চিনতে ভুল করলেন। যারা তাঁর সমালোচনা করলেন, ভাবলেন তাঁরা সবাই শত্রু। আর ভাবলেন, ধান্দাবাজ মিডিয়া আর তৃতীয়শ্রেণীর বুদ্ধিজীবীরা প্রকৃত কমরেড। তাকিয়ে দেখুন সেই কমরেডদের অনেকেই আজ দিদির দলে নাম লিখিয়াছেন।

সেদিন যদি বুদ্ধবাবু বুঝতেন, অহংকার নিয়ে বসে না থেকে যে কোনও ভাবে শিল্পায়ন শুরু করা উচিত, প্রয়োজনে অন্য কোথাও, প্রয়োজনে বিরোধীদের সঙ্গে আলোচনা করে, প্রয়োজনে আরও একটু সময় নিয়ে… তাহলে আজ তাঁর মুখ্যমন্ত্রিত্ব এবং বামফ্রন্টের শাসন দুটোই বজায় থাকত। আর রাজ্যের চেহারাও বদলে যেত।

কিন্তু হায় দারা শিকো, হায় বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য… “নিজ দোষে মজালে রাক্ষসকুল, মজিলা আপনি।“

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × two =

You might also like...

bandhabgarh3

বান্ধবগড়ে জঙ্গলের মধ্যে এক হোটেল

Read More →
game of thrones season 7 episode 1 game of thrones season 7 watch online game of thrones season 7 live streaming game of thrones season 7 episode 1 voot voot apk uc news vidmate download flipkart flipkart flipkart apk cartoon hd cartoonhd cartoon hd apk cartoon hd download 9Apps 9Apps apk